ডার্ক মোড
Saturday, 20 April 2024
ePaper   
Logo
বড়লেখায় প্রেমের ফাঁদে ফেলে তরুণীকে গণধর্ষণ

বড়লেখায় প্রেমের ফাঁদে ফেলে তরুণীকে গণধর্ষণ

মৌলভীবাজার প্রতিনিধি

বড়লেখায় প্রেমের ফাঁদে পড়ে এক তরুণী (২৩) গণর্ধষণের শিকার হয়েছে। প্রেমিক নামধারি লম্পট উপজেলার উত্তর শাহবাজপুর ইউনিয়নের একটি চা বাগানে বেড়াতে নিয়ে বন্ধুরা মিলে জোরপূর্বক তরুণীটির সর্বস্ব লুটে নিয়েছে।

এঘটনায় চিকিৎসা শেষে নির্যাতিত তরুণী প্রেমিকসহ ৫ জনের নাম উল্লেখ ও আরো কয়েকজনকে অজ্ঞাত আসামি করে শনিবার থানায় ধর্ষণ মামলা করেছে। পুলিশ অভিযান চালিয়ে লম্পট প্রেমিক মাহমুদুল হাসান ও তার বন্ধু আল আমিনকে গ্রেফতার করে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠিয়েছে। অন্য আসামিদের গ্রেফতারে পুলিশ অভিযান চালাচ্ছে।

মাহমুদুল হাসান উপজেলার সায়পুর গ্রামের ডালিম মিয়ার ছেলে এবং আল আমিন পূর্ব দৌলতপুর গ্রামের কুদরত আলীর ছেলে।

জানা গেছে, উপজেলার নিজ বাহাদুরপুর ইউনিয়নের কান্দিগ্রামের এক তরুণীর সাথে মাহমুদুল হাসান প্রেমের সম্পর্ক গড়ে তোলে। গত ১২ জানুয়ারি প্রেমিক মাহমুদুল হাসান বেড়ানোর কথা বলে তাকে অহিদাবাদ চা বাগানে নিয়ে যায়। পুর্ব থেকে গোপনে সে তার কয়েকজন বন্ধুকে সেখানে রেখে দেয়। নির্জন স্থানে নিয়ে জোরপূর্বক সবাই মিলে তরুণীকে গণর্ধষণ করে।

গুরুতর আহত অবস্থায় লম্পটরা বাড়ির পাশে ধর্ষিতা তরুণীকে ফেলে যায়। এঘটনায় প্রেমিক মাহমুদুল হাসান, তার বন্ধু আল আমিন, রমিজ উদ্দিন, নুরুল ইসলাম ও ছানোয়ার আহমদের নাম উল্লেখ ও কয়েকজনকে অজ্ঞাত আসামি করে ধর্ষিতার মা থানায় মামলা করেছেন।

শাহবাজপুর পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ ইন্সপেক্টর গোপাল দাস জানান, ধর্ষণের শিকার তরুণীর মায়ের মামলা দায়েরের পরই পুলিশ অভিযান চালিয়ে প্রধান আসামি মাহমুদুল হাসান ও তার বন্ধু আল আমিনকে গ্রেফতার করেছে। শনিবার আদালতে মাহমুদুল হাসান স্বীকারোক্তি দিয়েছে।

মন্তব্য / থেকে প্রত্যুত্তর দিন