ডার্ক মোড
Sunday, 16 June 2024
ePaper   
Logo
লোকসভা ভোটে না লড়ার কারণ জানালেন প্রিয়াঙ্কা

লোকসভা ভোটে না লড়ার কারণ জানালেন প্রিয়াঙ্কা

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

এবারের লোকসভা ভোটে প্রার্থী হননি প্রিয়াঙ্কা গান্ধী। তবে দাদা রাহুল গান্ধী লড়ছেন নির্বাচনে। গণমাধ্যমকে তিনি নিজেই জানিয়েছেন, দলের হয়ে প্রচার চালানোর জন্যই তিনি প্রার্থী হননি। প্রিয়াঙ্কা এবং রাহুল গান্ধী দুজনেই ভোটে প্রার্থী হলে সেটা বিজেপির জন্য সুবিধাজনক হয়ে যেতো বলে মনে করেন তিনি।

প্রিয়াঙ্কা জানান, নির্বাচন উপলক্ষ্যে গত ১৫ দিন ধরে রায়বেরিলিতে প্রচারণা চালাচ্ছেন তিনি। গান্ধী পরিবারের সঙ্গে রায়বেরিলির সম্পর্ক অনেক দিনের। তাই এখানকার জনগণ আশা করে, আমরা এখানে আসব। তাদের সঙ্গে দেখা করব। ভালোমন্দের খবর নেবো। আমরা এখানে রিমোট কন্ট্রোলের সাহায্যে জিততে পারি না।

গান্ধী পরিবারের ঘাঁটি উত্তর প্রদেশের রায়বেরিলি থেকে ভোটে লড়ছেন রাহুল। এর আগে এ আসনে প্রার্থী হতেন তার মা, সোনিয়া গান্ধী। চলতি বছরের শুরুতে সোনিয়া রাজ্যসভায় চলে যান। মায়ের ছেড়ে আসা আসনেই লড়ছেন রাহুল।

প্রিয়াঙ্কা বলেন, দুই ভাইবোন ভোটে লড়লে, দুজনকেই নিজেদের কেন্দ্রে অন্তত ১৫ দিন থাকতে হত। তাই আমরা ঠিক করি, একজন পুরো দেশে প্রচার চালাবে। সেটা দলের জন্য খুব ইতিবাচক হবে। দলীয় স্তরে আলোচনা করেই আমরা এ সিদ্ধান্ত নিয়েছি।

ভবিষ্যতে ভোটে লড়বেন কী না জানতে চাইলে কৌশলে তা এড়িয়ে যান প্রিয়াঙ্কা। তিনি বলেন, আমি কখনই সংসদীয় রাজনীতি করা কিংবা ভোটে লড়ার কথা ভাবিনি। দল আমাকে যা দায়িত্ব দেবে, সেটাই নিষ্ঠার সঙ্গে পালন করবো। যদি মানুষ চায় তাহলে আমি অবশ্যই ভোটে লড়ব।

বিজেপি অবশ্য দাবি করেছে, ভোটে হেরে যাওয়ার ভয়েই লড়ছেন না প্রিয়াঙ্কা গান্ধী। বিষয়টিকে উড়িয়ে দিয়ে কংগ্রেস নেত্রী বলেন, বিজেপির স্ট্রাটেজি অনুযায়ী দল চলে না। যদি আমরা দুই ভাইবোনই ভোটে লড়তাম, তাহলে সেটা বিজেপির জন্য সুবিধাজনক হত। সেক্ষেত্রে দুজনের কেউই দেশজুড়ে সেভাবে প্রচার চালাতে পারতাম না।

প্রসঙ্গত, দেশজুড়ে এবার ৭ দফায় লোকসভা নির্বাচন হচ্ছে। ১৯ এপ্রিল, ২৬ এপ্রিল, ৭ মে, ১৩ মে চার দফার ভোট ইতোমধ্যেই সমাপ্ত হয়েছে। পঞ্চম ধাপে ২০ মে, ষষ্ঠ ধাপে ২৫ মে এবং সপ্তম ধাপে ১ জুন ভোটগ্রহণ হবে। নির্বাচন প্রক্রিয়া চলবে মোট ৪৩ দিন। আগামী ৪ জুন ভোটের ফলাফল ঘোষণা করা হবে।

মন্তব্য / থেকে প্রত্যুত্তর দিন