ডার্ক মোড
Sunday, 19 May 2024
ePaper   
Logo
বরগুনায় স্কুল ছাত্রীকে উত্যাক্তের প্রতিবাদে বাবা-মাকে লোহার হাতুড়ি দিয়ে পিটিয়ে জখম

বরগুনায় স্কুল ছাত্রীকে উত্যাক্তের প্রতিবাদে বাবা-মাকে লোহার হাতুড়ি দিয়ে পিটিয়ে জখম

বরগুনা প্রতিনিধি

অষ্টম শ্রেনীতে পড়ুয়া স্কুল ছাত্রী মেয়েকে উত্যাক্তের প্রতিবাদ করায় মা-বাবাকে ঘর থেকে ডেকে নিয়ে বখাটে জাহিদ মোল্লা ও তার স্বজনরা লোহার হাতুড়ি দিয়ে পিটিয়ে গুরুতর জখম করেছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। আহত স্কুল ছাত্রীর বাবা - মা ও চাচাতো ভাই রিমনকে স্বজনরা উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেছে। ঘটনা ঘটেছে বুধবার রাতে আমতলী উপজেলার চলাভাঙ্গা গ্রামে।

বৃহস্পতিবার (২৫ জানুয়ারী) এ ঘটনায় মেয়ের মা আমতলী থানায় লিখিত অভিযোগ দিলে আমতলী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা অফিসার ইনচার্জ (ওসি) শাখাওয়াত হোসেন বিকেলে বিষয়টি নিশ্চিত করেন।

জানাগেছে, উপজেলার চলাভাঙ্গা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের অষ্টম শ্রেনীর এক ছাত্রীকে গত এক বছর ধরে বখাটে জাহিদ মোল্লা উত্যাক্ত করে আসছে। গত তিন মাস আগে ওই স্কুল ছাত্রীকে বখাটে জাহিদ মোল্লা বাড়ী থেকে তুলে নিয়ে যায় এমন দাবী ছাত্রীর বাবার। স্থানীয় ইউপি সদস্য জালাল খাঁনের সহযোগীতায় ওই স্কুল ছাত্রীকে উদ্ধার করে তার বাবার হাতে তুলে দেওয়া হয়েছে।

বুধবার সকাল ৯ টার দিকে স্কুলে যাওয়ার পথে ওই ছাত্রীকে বখাটে জাহিদ মোল্লা পুনরায় উত্যাক্ত করে বলে জানান স্কুল ছাত্রী। খবর পেয়ে ছাত্রীর বাবা এ ঘটনার প্রতিবাদ করে জাহিদকে মারধর করে বলে দাবী করেন ছেলের খালু স্বজল আকন।

এ ঘটনার জের ধরে ওইদিন রাতে মেয়ের বাবা ও অস্তঃস্বত্তা মাকে শালিস বৈঠকের কথা বলে বখাটে জাহিদ মোল্লার খালু স্বজল আকন ডেকে নেয়। পরে স্বজল আকন, ছালাম আকন, সাইফুল মোল্লা ও বখাটে জাহিদ মোল্লা তাদের লোহার হাতুড়ি দিয়ে পিটিয়ে গুরুতর জখম করে। তাদের মারধরে মেয়ের বাবা বিবস্ত্র হয়ে গেলেও তারা তাকে মারধরে নিবৃত হয়নি। এ সময় তাদের রক্ষায় মেয়ের চাচাতো ভাই রিমন এগিয়ে আসলে তাকেও পিটিয়ে জখম করে।

এতে তাদের মাথায় ও শরীরের বিভিন্ন স্থানে রক্তাক্ত জখম হয়। খবর পেয়ে স্বজনরা তাদের উদ্ধার করে ওইদিন রাত সাড়ে নয়টার দিকে আমতলী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেছে। এ ঘটনায় ছাত্রীর মা বৃহস্পতিবার আমতলী থানায় লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন। এ ঘটনার পরপর বখাটে জাহিদ মোল্লা পলাতক রয়েছে।

স্কুল ছাত্রীর বাবার বাড়ী ঢাকার সাভার থানার বাজারশোন এলাকায়। তিনি গত দুই বছর আগে তিনি আমতলী উপজেলার চলাভাঙ্গা গ্রামে জমি রেখে বাড়ীঘর নির্মাণ করে বসবাস করছেন।

স্কুল ছাত্রীর আহত বাবা অভিযোগ করে বলেন, আমার মেয়েকে বখাটে জাহিদ মোল্লা স্কুলে আসা- যাওয়ার পথে উত্যাক্ত করে আসছে। আমি এর প্রতিবাদ করায় আমাকে, আমার দুই মাসের অন্তঃস্বত্তা স্ত্রীকে ডেকে নিয়ে লোহার হাতুড়ি দিয়ে পিটিয়ে গুরুতর জখম করেছে।

তিনি আরো বলেন, স্বজল আকন ও ছেলের বাবা সাইফুল মোল্লা আমাকে পিটিয়ে বিবস্ত্র করে। আমি তাদের হাতে পায়ে ধরেও রক্ষা পাইনি। আমার বাড়ী এ এলাকায় না হওয়ায় তারা আমাকে বেশ নির্যাতন করছে। আমি এ ঘটনার বিচার চাই।

বখাটে জাহিদ মোল্লার খালু স্বজল আকন স্কুল ছাত্রীকে তার ভায়রার ছেলের উত্যাক্তের কথা স্বীকার করে বলেন, আমার ভায়রার ছেলেকে মেয়ের বাবা মারধর করেছে। তাই আমি শালিস বৈঠকে বসার কথা বলে তাদের ডেকে এনেছি। কিন্তু তিনি আমার ওপরে হামলা করেছে।

বখাটের জাহিদ মোল্লার বাবা সাইফুল মোল্লার মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি সাংবাদিক পরিচয় পেয়েই ফোনের সংযোগ কেটে দেন।

আমতলী উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাঃ আব্দুল মুনয়েম সাদ বলেন, আহত স্কুল ছাত্রীর বাবার মাথা ও শরীরের বিভিন্ন স্থানে রক্তাক্ত জখমের চিহৃ রয়েছে। তিনি আরো বলেন, তাকে তার ভাইকে যথাযথ চিকিৎসা দিয়ে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

মন্তব্য / থেকে প্রত্যুত্তর দিন