ডার্ক মোড
Thursday, 13 June 2024
ePaper   
Logo
ঢাবি-এ নবায়নযোগ্য শক্তি বিষয়ক দু’দিনব্যাপী সম্মেলন শুরু

ঢাবি-এ নবায়নযোগ্য শক্তি বিষয়ক দু’দিনব্যাপী সম্মেলন শুরু

ঢাবি প্রতিনিধি

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শক্তি ইনস্টিটিউটের উদ্যোগে ‘Policy Frameworks for Enabling Renewable Energy Investment: A Global and Regional Perspective’ শীর্ষক দু’দিনব্যাপী ২৪তম জাতীয় রিনিউয়েবল এনার্জি সম্মেলন ও গ্রিন এক্সপো আজ ২২ মে ২০২৪ বুধবার নবাব নওয়াব আলী চৌধুরী সিনেট ভবন মিলনায়তনে শুরু হয়েছে।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. এ এস এম মাকসুদ কামালের সভাপতিত্বে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ এমপি প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন। গ্রিনটেক ফাউন্ডেশনের সহযোগিতায় এই সম্মেলন আয়োজন করা হয়েছে।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের এসডিজি বিষয়ক প্রধান সমন্বয়কারী মো. আক্তার হোসেন, ইনফ্রাস্ট্রাকচার ডেভেলপমেন্ট কোম্পানি লিমিটেডের সিইও মো. আলমগীর মোরশেদ, বাংলাদেশ সোলার রিনিউয়েবল এনার্জি অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি ইঞ্জি. মো. নুরুল আক্তার এবং টেকসই ও নবায়নযোগ্য জ্বালানি উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান মুনিরা সুলতানা এনডিসি বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন। গ্রিনটেক ফাউন্ডেশন বাংলাদেশের উপদেষ্টা ও বিআইবিএমের ফ্যাকাল্টি মেম্বার খোন্দকার মোর্শেদ মিল্লাত মূলপ্রবন্ধ উপস্থাপন করেন। স্বাগত বক্তব্য দেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শক্তি ইনস্টিটিউট-এর সহযোগী অধ্যাপক ড. এস এম নাসিফ শামস্। ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন গ্রিনটেক ফাউন্ডেশনের নির্বাহী পরিচালক লুৎফর রহমান।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ এমপি বৈশ্বিক জলবায়ু পরিবর্তনের কারণে বাংলাদেশের মতো ক্ষতিগ্রস্ত দেশসমূহের দুর্যোগ ঝুঁকি কমাতে আর্থিক সহায়তা প্রদানের জন্য উন্নত বিশ্বের নেতৃবৃন্দের প্রতি আহŸান জানান। তিনি বলেন, কার্বন নিঃসরণের জন্য মূলতঃ উন্নত দেশসমূহই দায়ী। তাই বৈশ্বিক পরিবেশ রক্ষায় তাদের মূখ্য ভ‚মিকা পালন করতে হবে। তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ২০৪১ সালের মধ্যে দেশে ৪০ শতাংশ নবায়নযোগ্য জ্বালানি উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করেছেন। এ লক্ষ্য অর্জনে ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করার জন্য তিনি পেশাজীবী ও গবেষকদের প্রতি আহবান জানান। তিনি জ্বালানি নীতি আধুনিকায়নের উপর গুরুত্বারোপ করেন।

উপাচার্য অধ্যাপক ড. এ এস এম মাকসুদ কামাল নবায়নযোগ্য শক্তির উৎপাদন বৃদ্ধি এবং পরিবেশকে সব ধরনের দূষণ থেকে মুক্ত রাখতে স্বল্পমেয়াদি ও দীর্ঘমেয়াদি পরিকল্পনা প্রণয়নের ওপর গুরুত্বারোপ করেন। তিনি বলেন, গ্রিন এনার্জি উৎপাদনের ক্ষেত্রে সফলতা অর্জনের জন্য সরকারি-বেসরকারি অংশীদারিত্ব আরও বৃদ্ধি করতে হবে। পরিবেশকে পরিচ্ছন্ন রাখতে অগ্রণী ভ‚মিকা পালনের জন্য তিনি শিক্ষার্থীদের প্রতি আহবান জানান। উপাচার্য তরুণ সমাজকে দক্ষ মানবসম্পদ হিসেবে গড়ে তুলতে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে নবায়নযোগ্য শক্তি ও পরিবেশ বিষয়ে প্রশিক্ষণ কর্মসূচি চালুর আগ্রহ প্রকাশ করেন এবং এব্যাপারে সরকারি ও বেসরকারি খাতের সহযোগিতা চান।

মন্তব্য / থেকে প্রত্যুত্তর দিন