ডার্ক মোড
Thursday, 23 May 2024
ePaper   
Logo
ঢাবিতে বঙ্গবন্ধুর জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতা

ঢাবিতে বঙ্গবন্ধুর জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতা

 

ঢাবি প্রতিনিধি

স্বাধীনতার মহান স্থপতি, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ১০২তম জন্মবার্ষিকী এবং জাতীয় শিশু দিবস উপলক্ষ্যে শিশু-কিশোর চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতার পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠান শনিবার (২ জুলাই) নবাব নওয়াব আলী চৌধুরী সিনেট ভবনে অনুষ্ঠিত হয়।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামান প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে প্রতিযোগিতায় বিজয়ীদের মাঝে পুরস্কার ও সনদপত্র বিতরণ করেন। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় চারুকলা অনুষদ এই অনুষ্ঠানের আয়োজন করে।চারুকলা অনুষদের ডিন অধ্যাপক নিসার হোসেন অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন। অনুষ্ঠান সঞ্চালন করেন রেজিস্ট্রার প্রবীর কুমার সরকার।
উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামান পরিবারকে সবচেয়ে বড় শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান হিসেবে উল্লেখ করে বলেন, শিশুদের মধ্যে বঙ্গবন্ধুর অসাম্প্রদায়িক ও মানবিক মূল্যবোধের বিকাশ ঘটাতে পরিবারকেই দায়িত্ব পালন করতে হবে। শিশুদের বেড়ে ওঠার জন্য অনুকূল পরিবেশ নিশ্চিত করতে হবে। পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে পারস্পরিক আলাপচারিতা ও মতবিনিময়ের ব্যাপারে শিশুদের উদ্বুদ্ধ করতে হবে। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আদর্শ ও জীবনবোধ থেকে শিক্ষা নিয়ে শিশুদের সুনাগরিক হিসেবে গড়ে তোলার জন্য তিনি অভিভাবকদের প্রতি আহবান জানান।

উল্লেখ্য, গত ১৭ মার্চ ২০২২ এই শিশু-কিশোর চিত্রাঙ্কণ প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়। প্রতিযোগিতায় মোট তিনটি গ্রুপে শতাধিক প্রতিযোগী অংশগ্রহণ করে। প্রত্যেক গ্রুপের সেরা ১০জন করে মোট ৩০জন প্রতিযোগীকে পুরস্কার প্রদান করা হয়।

পুরস্কারপ্রাপ্তরা হলো- ক বিভাগে নামিরা আলম, সামিহা তাবাচ্ছুম, ধ্রুপদ আহির পাল, সাইফান আমিন সায়ান, অনিরুদ্ধ ধর, আহনাফ ওহী তাজদীদ, সামায়রা রহমান তালুকদার জারা, ফাহমিদা তাজ জোহরা, গাজী আয়েশা সিদ্দিকা এবং তানিশ তারাজ কিবরিয়া। খ বিভাগে-জান্নাতুল ফেরদৌস চন্দ্র, মুহাম্মদ তাওসিফ আলম, ফাতিম আদিয়াত নিহাল, এস এম শাহরিয়ার, লাবিবা রহমান প্রগতি, আতিয়া আদিবা লাবন্য, মো. তাসিন প্রধানীয়, খাদিজা আক্তার, কথা ইসলাম এবং গল্প ইসলাম। গ বিভাগে- আল মুমিনুর, অনিল ভৌমিক, আফরিদা ফারহানা খান, জারিন মাহমুদ, মুনতাকা ইসলাম, হায়দার আমিন সিয়াম, বৃতি রায়, কাসিতা নুসাইয়া তাকি, নূর তাজ চেতনা এবং মাহিমা আক্তার।

মন্তব্য / থেকে প্রত্যুত্তর দিন