ডার্ক মোড
Sunday, 19 May 2024
ePaper   
Logo
ঝালকাঠি-১ আসনে আ'লীগের ১০ জনের দলীয় মনোনয়ন ফরম ক্রয়

ঝালকাঠি-১ আসনে আ'লীগের ১০ জনের দলীয় মনোনয়ন ফরম ক্রয়

রাজাপুর (ঝালকাঠি) প্রতিনিধি

আসন্ন দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করেছে নির্বাচন কমিশন। ২০২৪ সালের জানুয়ারির ৭ তারিখ ধার্য করা হয়েছে নির্বাচনের দিন। প্রতিটি আসনের একাধিক মনোনয়ন প্রত্যাশিরা নৌকা প্রতীক পেতে ক্রয় কয়েছেন দলীয় মনোনয়ন ফরম। ১৮ থেকে ২১ তারিখ পর্যন্ত আওয়ামীলীগের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে চলা এই সময়ে ঝালকাঠি-১ (রাজাপুর-কাঠালিয়া) আসনের দলীয় প্রতীক পেতে মনোনয়ন ক্রয় করেছেন ১০ জন।

জানা যায়, মনোনয়ন ক্রয় করা ১০ জনের ৮ জন রাজাপুরের এবং ২ জন কাঁঠালিয়ার। রাজাপুরের ৮ জন হচ্ছে- এই আসনটিতে নবম জাতীয় সংসদ নির্বাচন থেকে দলীয় মনোনয়নে নৌকা প্রতীকে জয়ী হয়ে আসা বজলুল হক হারুন। তিনি চতুর্থ বারের মত নির্বাচন করতে এবারেও ক্র‍য় করেছেন দলীয় মনোনয়ন। তার সাথে রয়েছে দীর্ঘদিন থেকে মনোনয়ন প্রত্যাশি সাবেক কেন্দ্রীয় ছাত্রনেতা, আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় মুক্তিযোদ্ধা বিষয়ক উপ কমিটির সদস্য ও কর্ণফুলী গ্যাস ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানি লিঃ এর পরিচালক বীর মুক্তিযোদ্ধার সন্তান মনিরুজ্জামান মনির।

রাজাপুর উপজেলা আওয়ামীলীগের সদস্য, গনপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের সাবেক অতিরিক্ত সচিব ও বাংলাদেশ কৃষি ব্যাংকের সাবেক চেয়ারম্যান মোহাম্মদ ইসমাইল। রাজাপুর উপজেলা আ'লীগের সাবেক সভাপতি প্রয়াত ড. এম এ হান্নান ফিরোজের সহধর্মিণী, ঝালকাঠি জেলা ও রাজাপুর উপজেলা আ'লীগের সদস্য ফাতিনাজ ফিরোজ। সাবেক ছাত্রনেতা, আওয়ামীলীগের ত্রাণ ও সমাজকল্যাণ বিষয়ক উপ কমিটির সদস্য ইঞ্জিনিয়ার আবুল কাশেম সীমান্ত।

রাজাপুর উপজেলা আওয়ামীলীগের সহ সভাপতি(৯) সিআইপি মোঃ রফিকুল ইসলাম লিটন। রাজাপুর উপজেলা আ'লীগের আইন বিষয়ক সম্পাদক এ্যাড আলমগীর সিকদার। রাজাপুর উপজেলা আ'লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মোঃ মুজিবুর রহমান মৃধা। কাঁঠালিয়া থেকে আওয়ামী যুব মহিলা লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক এবং সাবেক সহ সভাপতি ও ত্রান সমাজকল্যাণ উপ কমিটির সদস্য কেসোয়ারা সুলতানা। সাবেক সচিব খাইরুল ইসলাম মান্নানের সহধর্মিণী, কেন্দ্রীয় যুব মহিলা লীগের সদস্য ইসরাত জাহান। এরা সবাই-ই দলীয় মনোনয়ন পেতে শতভাগ আশাবাদী।

এদিকে কমবেশি সবারই কর্মী সমর্থক থাকলেও মাঠ দাপিয়ে বেড়াচ্ছে মনিরুজ্জামান মনির এবং তার কর্মী সমর্থকেরা। বিগত বছরগুলোতেও সরব ছিল এই নেতা তার কর্মী সমর্থকদের নিয়ে। করোনা কালীন কঠিন সময়েও মাঠের কর্ম ছিল চোখে পরার মত। অন্যদিকে বর্তমান সংসদ সদস্যের কিছু কর্মী সমর্থক থাকলেও তার নির্বাচনী এলাকায় পদচারণা কম থাকায় তারাও কিছুটা নির্জীব। নেতার সাথে বছরের পর বছর মুখদর্শন না হওয়ায় ক্ষোভের জন্ম নিয়েছে অধিকাংশ নেতাকর্মীর ভিতরে। ফাতিনাজ ফিরোজ তার স্বামীর রেখে যাওয়া এবং তার তৈরি করা নেতাকর্মী নিয়ে মাঝেমধ্যে রাজনৈতিক প্রোগ্রামে অংশগ্রহণ করেন। কিন্তু বাকিদের এই সংসদীয় আসনে পূর্বে অল্পস্বল্প পদচারণা থাকলেও নির্বাচন কালীন বেশী লক্ষ করা যাচ্ছে। তবে সবাই তাদের টুকটাক নির্বাচনী ইস্তেহার বর্ননা করা শুরু করেছে। প্রত্যেকেই নৌকা প্রতীক পেতে দলের হাইকমান্ডে চালাচ্ছেন জোর লোভিং।

রাজাপুর উপজেলা আওয়ামিলীগ সভাপতি, জেলা পরিষদ সদস্য, বীর মুক্তিযোদ্ধা এ্যাড খায়রুল আলম সরফরাজ বলেন, আমরা বঙ্গবন্ধু তনয়া শেখ হাসিনার কাছে এবারে ঝালকাঠি-১ আসনের নৌকার মাঝি হিসেবে এমন একজনকে চাই যাকে আমরা সুখে দুঃখে সব সময় কাছে পাবো। যার বেড়ে ওঠা আওয়ামীলীগের আদর্শে। সাধারণ কর্মীদের নাগালের ভিতরেই থাকবেন যিনি। দেশ ও দল বিরোধী শত্রু পক্ষ মোকাবেলায় যিনি থাকবেন অগ্রভাগে।

মন্তব্য / থেকে প্রত্যুত্তর দিন