ডার্ক মোড
Sunday, 19 May 2024
ePaper   
Logo
আগ্নেয়গিরিতে যে কোনো সময় নিশ্চিহ্ন হয়ে যেতে পারে আইসল্যান্ডের শহর

আগ্নেয়গিরিতে যে কোনো সময় নিশ্চিহ্ন হয়ে যেতে পারে আইসল্যান্ডের শহর

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

ইউরোপের দেশ আইসল্যান্ডে আগ্নেয়গিরি বিস্ফোরিত হয়ে বড় ধরনের অগ্ন্যুৎপাত শুরু হতে পারে। আর এ আগ্নেয়গিরিতে দেশটির গ্রিনদাভিক শহরটি নিশ্চিহ্ন হয়ে যেতে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে।

রাজধানী রেকজাভিকের কাছে অবস্থিত শহরটিতে ৪ হাজার মানুষের বসবাস ছিল। তবে আগ্নেয়গিরির কারণে শত শত ভূমিকম্পের পর সেখানকার বাসিন্দাদের শনিবার (১১ নভেম্বর) সকালে সরিয়ে ফেলা হয়।

আইসল্যান্ডের সিভিল প্রটেকশন অ্যান্ড ইমার্জেন্সি ম্যানেজমেন্ট বিভাগের প্রধান ভিদির রেনিসন বলেছেন, ‘এই এলাকার সব বাড়ি-ঘর ও অবকাঠামো নিয়ে আমরা সত্যিই খুবই চিন্তিত।’

তিনি আরও বলেছেন, ‘এই আগ্নেয়গিরির ম্যাগমা ভূপৃষ্ঠের খুবই কাছে আছে। আমরা আশঙ্কা করছি, কয়েক ঘণ্টা বা তারও কম সময়ের মধ্যে সেখানে বিস্ফোরণ হবে। সর্বোচ্চ হলে কয়েকদিনের মধ্যে এটি বিস্ফোরিত হবে।’

রাজধানীর কাছে অবস্থিত এ শহরটিতে সভার্তসেঙ্গি জিওথার্মাল প্ল্যান্ট অবস্থিত। এই প্ল্যান্ট থেকে রেকজানেস উপত্যকার ৩ লাখ মানুষকে বিদ্যুৎ ও পানি সরবরাহ করা হয়। এছাড়া সেখানে বিশুদ্ধ পানির জলাধার অবস্থিত।

ম্যাগমা ও ভূমিকম্পের কারণে ওই এলাকার আশপাশে ইতিমধ্যে রাস্তাঘাটসহ বিভিন্ন অবকাঠামো ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।

ভূমিকম্পের কারণে সেখানকার স্থানীয় একটি গলফ ক্লাবের সবুজ মাঠে বড় ধরনের ফাটল দেখা গেছে। এছাড়া বিভিন্ন রাস্তাতেও ফাটল ধরেছে।

আইসল্যান্ডে বর্তমানে ৩৩টি সক্রিয় আগ্নেয়গিরি আছে। দেশটিতে এখন জরুরি অবস্থা জারি করা হয়েছে এবং গ্রিনদাভিক থেকে বাধ্যতামূলকভাবে সব মানুষকে সরে যাওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

এসব মানুষের জন্য আশপাশের শহরে বিভিন্ন আশ্রয়কেন্দ্র খোলা হয়েছে। তবে বেশিরভাগ মানুষ আশ্রয় কেন্দ্রে না গিয়ে আত্মীয়-স্বজন ও বন্ধুবান্ধবদের বাড়িতে অবস্থান করছেন।

সূত্র: দ্য গার্ডিয়ান

মন্তব্য / থেকে প্রত্যুত্তর দিন