ডার্ক মোড
Thursday, 23 May 2024
ePaper   
Logo
তিস্তার পানি বিপৎসীমার ওপরে পানিবন্দী অর্ধ লক্ষ মানুষ

তিস্তার পানি বিপৎসীমার ওপরে পানিবন্দী অর্ধ লক্ষ মানুষ

লালমনিরহাট প্রতিনিধি

টানা বৃষ্টি ও উজানের ভারী ঢলে তিস্তার পানি বৃদ্ধি পেয়ে ডালিয়া পয়েন্টে বিপৎসীমার ৭ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। ফলে প্লাবিত হয়েছে ভাটিতে থাকা এলাকাগুলো। পানির চাপে ডালিয়া ব্যারেজের ৪৪টি গেট খুলে দিয়েছে কর্তৃপক্ষ।

সকাল ৬ টায় দেশের বৃহত্তম সেচ প্রকল্প তিস্তা ব্যারাজের পয়েন্টে তিস্তার পানিপ্রবাহ রেকর্ড করা হয়েছে বিপদসীমার ১০ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। (স্বাভাবিক ৫২ দশমিক ১৫ সেন্টিমিটার)। সকাল নয়টাতে বিপৎসীমার ৭ সেমি ওপরে প্রবাহিত হচ্ছে।

এর ফলে জেলার পাটগ্রাম, হাতিবান্ধা, কালীগঞ্জ, আদিতমারী ও সদর উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় পানি প্রবেশ করছে। নিম্নাঞ্চলে ইতিমধ্যে পানি ঢুকে গেছে। চরাঞ্চলেও পানিতে ডুবেছে বাড়িঘর ও রাস্তা ঘাট।

তিস্তার নদীর পানি বৃদ্ধিতে জেলার পাটগ্রামের দহগ্রাম, হাতীবান্ধার গড্ডিমারী,দোয়ানী,ছয়আনী, সানিয়াজান ইউনিয়নের নিজ শেখ সুন্দর, বাঘের চর, ফকিরপাড়া ইউপির রমনীগঞ্জ, সিঙ্গামারি ইউনিয়নের ধুবনী, সিন্দুর্না ইউপির পাটিকাপাড়া,হলদিবাড়ী, ডাউয়াবাড়ী, কালীগঞ্জ উপজেলার ভোটমারী, শৈইলমারী, নোহালী, চর বৈরাতি, আদিতমারী উপজেলার মহিষখোচা,কালমাটি,পলাশী ও সদর উপজেলার ফলিমারীর চর, খুনিয়াগাছ, কুলাঘাট, মোগলহাট, বড়বাড়ি, রাজপুর, গোকুণ্ডা ইউনিয়নের তিস্তা এলাকার নিম্নাঞ্চল প্লাবিত হয়েছে। এতে কয়েক হাজার মানুষ ইতিমধ্যে পানিবন্দী হয়ে পড়েছে। ডুবেছে চলাচলের রাস্তা।

পশুপাখি নিয়ে বন্যার্তরা উচু স্থানে অবস্থান নিতে শুরু করেছেন। অনেকেই উচু স্থানে চুলা জ্বালিয়ে রান্নার কাজ সাড়ছেন। গতকাল থেকে পানি তোড় আসায় নতুন নতুন এলাকায় এখনো পানি প্রবেশ করছে। নলকুপ, টয়লেটে পানি উঠায় বিশুদ্ধ পানি সংকট ও স্যানিটেশন সমস্যায় পড়ছেন তারা।

গোবর্ধন এলাকার গোলাম রব্বানি মিরু বলেন, কাল সকাল থেকেই পানি বাড়ছে, বারিঘর ডুবে যাচ্ছে। আজকেও পানি বেড়েই চলেছে। কিছু রাস্তায় পানি ছুইছুই। অনেকটা বিপদে পরে আছি।

আউয়াল মিয়া বলেন, সকাল থেকেই পানি হাটু সমান তাই খাটের উপর চুলা তুলে রান্না বান্না কাজ করতে হচ্ছে। গরু-ছাগল বাধে নিয়ে গিয়ে রাখছি। কোনরকমে খাটের উপরে উঠে থাকতে হচ্ছে।

লালমনিরহাট পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী সুনীল কুমার বলেন, পানি বিপৎসীমার উপরে প্রবাহিত হচ্ছে। উজান থেকে ভারী ঢল আসায় পানি বৃদ্ধি হচ্ছে। আমরা সার্বক্ষণিক খোজ রাখছি।

মন্তব্য / থেকে প্রত্যুত্তর দিন